বিএনপি যে কারণে কোনো রাজনৈতিক দল নয়, শুধু একটি বণিক সমিতি

0
520
বিএনপি

বিএনপিকে দেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বলে বিভিন্ন স্থানে মন্তব্য করা হলেও, এই গোষ্ঠীটি রাজনৈতিক দল হওয়ার কোনো শর্তই পূরণ করে না। কারণগুলোর উঠে এসেছে ১৯৮৪ সালে প্রকাশিত একটি অ্যাকাডেমিক গবেষণায়। সৈয়দ সিরাজুল ইসলামের সেই গবেষণার তথ্য থেকে জানা যায়- একজন সৈনিক হিসেবে দেশের ক্ষমতা দখল করে জিয়াউর রহমান। পরবর্তীতে নিজের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করার জন্য বন্দুকের নলের সাহায্যে একটি রাজনৈতিক দল গঠনের নামে একটি চক্র সৃষ্টি করে সে। এই দলের জন্ম প্রক্রিয়াই রাজনীতিবিমুখ ও নাগরিকদের প্রতি দমনমূলক কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে। জিয়া

আরও পড়ুনঃ জিয়াকে বললাম কিছু বলবেন কি

জার্নালে বলা হয়- ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর ডেপুটি চিফ মার্শাল ল অ্যাডমিনিশট্রেটর হিসেবে পরোক্ষভাবে দেশের শাসনক্ষমতা দখল করে জিয়াউর রহমান। এরপর ১৯৭৬ সালের ৩০ নভেম্বর নিজেকে চিফ মার্শাল ল অ্যাডমিনিশট্রেটর হিসেবে ঘোষণা দেয় সে। তারপর ১৯৭৭ সালে ২১ এপ্রিল নিজেকেই রাষ্ট্রপতি ঘোষণা করে স্বৈরাচার জিয়া। এরপর ১৯৭৭ সালের ৩০ মে এক লোকদেখানো হ্যাঁ/না ভোটের আয়োজন করে ৯৯.৫ শতাংশ ভোটে নিজেকে নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি হিসেবে ঘোষণা করে।

 

এরপর, ১৯৭৯ সালে জাতীয় নির্বাচনের আগে আগে নিজে রাষ্ট্রপতি ও সেনাপ্রধান থাকা অবস্থাতেই বিএনপি নামক একটি দলের ঘোষণা করে জিয়াউর রহমান। তখন দল গঠনের জন্য ১৯৭৮ সালে নিজের প্রতিষ্ঠিত নাম-কা-ওয়াস্তের দল জাতীয়তাবদী গণতান্ত্রিক দল, উগ্র বাম ঘরানার দল ন্যাপ-এর একটি অংশ, নামসর্বস্ব ইউনাইটেড পিপলস পার্টি, ধর্মীয় লেবাসধারী মুসলিম লীগ প্রভৃতিকে একসঙ্গে করে প্রতিষ্ঠা করা হয় বিএনপি। এমনকি দেশের রাজনীতিবিদদের মাইনাস করে ব্যবসায়ী ও পেশাজীবীদের স্থান দেওয়া হয় সেই দলে। ১৯৮১ সালে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি পর্যালোচনা করলে দেখা যায়- সেখানে ব্যবসায়ী ৫৭ জন (৩৩.৫%) ও আমলাসহ বিভিন্ন পেশাজীবী ৬৪ জন (৩৭,৭%)। পরিসংখ্যান বলছে, বিএনপি এমন একটি রাজনৈতিক দল যেখানে প্রকৃত রাজনীতিবিদেরই কোনো স্থান নাই। তারাই সেখানে সংখ্যালঘু।

আরও পড়ুনঃ জিয়ার আমলে সশস্ত্র বাহিনীতে কতজনকে হত্যা করা হয়েছিল?

এমনকি ১৯৭৯ সালে লোকদেখানো ও জালিয়াতির নির্বাচনের পর দেখা যায়, বিএনপির ২০৬ সংসদ সদস্যদের মধ্যে ৮৪ জনই ব্যবসায়ী। দেশের ভোটের ইতিহাস কলঙ্কিত করতে অবৈধ অর্থ, অস্ত্র ও ভোট কেনার অপচর্চা শুরু হয় জিয়াউর রহমান ও বিএনপির হাত ধরেই। দলটি শুরু থেকেই জনগণ নয় বরং অর্থ ও পেশীশক্তির ওপর ভর করেই দাঁড়াতে চেয়েছে। ফলে রাজনৈতিক দল হওয়ার ক্ষেত্রে বিএনপিকে একটি ব্যর্থ বণিক সমিতি হিসেবে আখ্যায়িত করা হয় ইতিহাসে।

আরও পড়ুনঃ

মতামত দিন

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে